অ্যান্ড্রয়েড অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ

মার্কেটে গুগলের নতুন অসাধারন হেল্পফুল অ্যাপ ‘ডেটালি’

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সার্চ ইঞ্জিন গুগল বৃহস্পতিবার ডেটালি (Datally) নামে একটি  স্মার্ট অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপলিকেশনের ঘোষণা করেছে। এই অসাধারন অ্যাপ স্মার্টফোন গ্রাহকদের কাছে মোবাইল ফোনের ডেটা বুঝতে পারা এবং তা কন্ট্রোল ও সেভ করার ক্ষেত্রে খুবই সাহায্যকারী একটি অ্যাপ হবে বলে দাবি করছে গুগল। ডেটালি যেকোনো অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ ভার্সন বা আরো আপডেটেড সংস্করণের মোবাইল ফোনেই ব্যবহারের উপযোগী। এটি আজ বৃহস্পতিবার থেকে  প্লে স্টোরে সক্রিয় হবে।

চলুন এক নজরে ডেটালি (Datally)-এর সুবিধা গুলি দেখে নেওয়া যাক...

সারা বিশ্বে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ডেটা ব্যবহারে বড় সমস্যায় পড়েন এবং এ নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে থাকেন। এই সমস্যার দুর্দান্ত সমাধান দেবে ডেটালি। দুনিয়াজুড়ে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের ওপর গুগলের পরিচালিত একটি ব্যাপকভিত্তিক গবেষণায় ওঠে আসে যে স্মার্টফোন ব্যবহারকারী অনেকেই তাঁদের স্মার্টফোনে ডেটা সঠিকভাবে সংরক্ষণ ও ব্যবহার নিয়ে সমস্যায় পড়েন এবং উদ্বেগের মধ্যে থাকেন। বিশেষ করে যারা স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী নবাগতরা এই সমস্যায় বেশি ভোগেন, যাঁরা ‘নেক্সট বিলিয়ন ইউজার’ নামে পরিচিত।

যে কোন স্মার্টফোনে নতুন ইন্টারনেট গ্রাহকরা শুধু যে ডেটা ব্যবহারে চিন্তা রাখা নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন থাকেন তা-ই নয়, বরং তাঁদের স্মার্টফোন থেকে ডেটা কখন কীভাবে কোথায় চলে যায় সেটিও বুঝতে পারেন না। কারণ কোনো অ্যাপে কীভাবে ডেটা রাখতে হবে তা তাঁরা জানেন না বলে সেটাকে আর বাঁচিয়ে রাখতে পরেন না।

এসব সমস্যা সমাধানের জন্য গুগলের নতুন এই  ডেটালি (Datally) -এর বৈশিষ্টগুলো হচ্ছে-

ডেটা সেভা করবে : ডেটালিতে ডেটা সেভ করার ক্ষমতা সম্পন্ন একটি অ্যাপ থাকায় স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা যখন-তখন ডেটা ব্যবহার এবং বিভিন্ন কাজ তথ্য আপডেট তথা হালনাগাদ করে নিতে পারবেন। ডেটালির ডেটা সেভারটিতে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের অ্যাপ অনুযায়ী ডেটা নিয়ন্ত্রণের সুযোগ করে দিয়েছে। এর ফলে একজন ব্যবহারকারী যে অ্যাপের মধ্যে ডেটা রাখতে চান সেখানেই রাখতে পারবে। যেসব ব্যবহারকারীরা ডেটালি অ্যাপটি টেস্ট করএছে পেয়েছেন তাঁরা ৩০ শতাংশ পর্যন্ত মোবাইল ডেটা সেভ করেছে।

ডেটা সেভারের সুবিধা : ডেটালিতে রয়েছে ডেটা সেভার বাবল। যখন একজন ব্যবহাকারী কোনো অ্যাপে যাবেন বা ঢুকবেন তখন ডেটালির এই ডেটা সেভার বাবল দেখা যাবে। ফলে ওই ব্যবহারকারী সহজেই ডেটা ব্যবহার করতে পারবেন। এর ফলে একজন ব্যবহারকারী সহজেই ওই অ্যাপের ডেটা কি করবেন সেই সিদ্ধান্ত যেটা নিয়ে সবাই কথা বলে নিতে পারবেন কিংবা বিষয়টি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে সেটিও নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। মোবাইল ডেটা ব্যবহারের ক্ষেত্রে ডেটা সেভার বাবল একটি স্পিডোমিটারের মতো কাজ করবে।

ওয়াই-ফাই খুঁজে নেবে সহজে : ব্যবহারকারিদের কখনো কখনো অধিক পরিমাণে ডেটা ব্যবহার করতে ইচ্ছা করে। এ ধরনের মুহূর্তে ব্যবহারকারীদের একটি পরিকল্পনা থাকতে হয়, যেমন- ইউটুবে ভিডিও দেখবে ভালো কোয়ালিটি সম্পন্ন। এ ক্ষেত্রে ব্যাভারকারিরা উচ্চ ক্সষমতাম্পন্ন পাবলিক ওয়াই-ফাই খোঁজে।

গুগল যা ব্লছেঃ- গুগলের উদ্দেশ্য হচ্ছে, বিশ্বব্যাপী তথ্য সংগঠিত করা এবং সেটাকে যতটা সম্ভব সর্বজনীন ব্যবহার ও উপকার সাধনের উপযোগী করে তোলা। সার্চ ইঞ্জিন, ম্যাপস বা মানচিত্র,ক্রোমে , ইউটিউব, জিমেইল, অ্যান্ড্রয়েড, গুগল প্লে,  প্রভৃতি প্রযুক্তি সেবার মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে শত শত কোটি মানুষের দৈনন্দিন জীবনের মধ্যে  বেঁচে চলেছে গুগল।এইভাবেই তাঁরা সহযোগী প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠেছে।

আরো বেশি এই সম্পর্কে জানতে চাইলে এখনি প্রবেশ করুন ডেটালির ওয়েবসাইটে : এখানে ক্লিক করুন

Please follow and like us: